সংবাদ >> রাজনীতি

দাম দিয়ে কিনেছি এই বাংলা : চুম্বক অংশ ১

পাঠক মন্তব্য

md. misbah uddin, doha, qatar,  08 Apr,2016 12:18am

Mukti juddho o tar poroborti sottikarer etihash sobaike jananur jonno dhannabad Onekei esob janena ba janleo na janar van Kore. Thank you for your article.

Kamrul Hayder, ,  17 Sep,2016 03:43am

১/৮ পরলোক থেকে হাসিনা কে সেখ মুজিব এর ফোনকল ঃ - (হাসিনা – সেখ মুজিব ফোনালাপ) ঃ- হাসিনা ঃ আব্বা কেমন আছেন ? মুজিব ঃ এইত আছি কোনরকম । ৩০ লাখ মানুসের বদদোয়া। আর কত ভাল থাকি। হাসিনা ঃ বদ দোয়া মানে ? মুজিব ঃ খুব এ ক্লিয়ার বাপার। যাদের বুদ্ধি আসে তারা তারা ঠিক ই বুঝে বাপারটা কি। ইয়াহিয়া 1st flight এ, আমি 2nd Flight এ , আর Bhutto 3rd Flight এ পাকিস্তান চইলা গেলাম। সেস পর্যন্ত তিন ষরজন্ত্রকারির(ভুত্ত, ইন্দিরা আয় আমি) অশাভাবিক ম্রিত্তু হইল। সব এ প্রকিতির প্রতিশোধ। হাসিনা ঃ একটু খুইলা কন্ত আব্বা । মুজিব ঃ আসল কথা খুব কম মানুষ এ জানে। বলতে গেলে জানেই না। ইয়াহিয়া এর সাথে স্মঝতা হয় আমার - আমি প্রধান মন্ত্রি হব। ভুত্ত উপ প্রধান মন্ত্রি , আর ইয়াহিয়া পাকিস্থান এর প্রেসিডেন্ট। তবে ভুত্ত পাসাপাসি দেসের পররাস্ত্র মন্ত্রির দায়িত্তও পালন করবেন। আমি রাজি হয়ে গেলাম। হাসিনা ঃ Very interesting . তারপর ? মুজিব ঃ ইয়াহিয়া আমায় না জানিয়ে ওয়েস্ট পাকিস্তান ছলে গেল। একান্ত আলাপে আমায় বলসিল ওয়েস্ট পাকিস্তান থেকে আমার(ইয়াহিয়া এর) সচিব ড্রঃ কামাল হসসাইন এর কাসে ফোন করে জাতিয় পরিষদ এর অধিবেশন এর তারিখ জানাবে। কিন্তু ইয়াহিয়া আর যোগাযোগ করেনি। খুব সম্ভব ইয়াহিয়া কে পরিচালনাকারি অন্ন জেনেরাল রা এসব অনুমদন করেনি , আর ভুত্ত এর ষড়যন্শরজন্ত ছিলই। আসলে এই খানে অনেক কিছুই হইসে। বিমান / জাহাজে কইরা সইন্ন আনা, বাঙালি সইন্ন ২/৮ দের বিভিন্ন সেনা সিবির এ আলাদা করে রাখা.........।। অনেক কিছুই। আমি সভকিছু বুস্তে পারি নাই। আমি সুধু একটা জিনিস ই বুস্তাম – পূর্ব পাকিস্তান (বাংলাদেশ) আলাদা হইলে – ইন্ডিয়া এখানে মাতবরির চেষ্টা করবে, আমরা কখনই সাধিন ভাবে চলতে পারব না। তাই আমি ওয়েস্ট পাকিস্তান কে সব সময়এই ইন্ডিয়া এর ইঙ্গিত দিয়া চাপে রাখতাম, আবার পুরাপুরি সাধিন হাও্ইয়ার কথাও ভাবতাম না। খুব এ জটিল ব্যাপার ছিল। হাসিনাঃ কিন্তু ওয়েস্ট পাকিস্তান এর আর্মি পরে ভুত্ত কে ফাসি দিল। ৩০ লক্ষ বাঙালি মারল। আপনাকে ফাসি দিল না কেন ? মুজিব ঃ আমি ওয়েস্ট পাকিস্তান এ Mr. Bhutto কে বলেসিলাম ওয়েস্ট পাকিস্তান এর সাথে কনফেদেরেসন করব। Bhutto যখন সুমস্ত ওয়াদা ভুলে আমাকে ফাসির ভয় দেখাল তখন আমি Bhutto এর হাতে –পায়ে ধরে প্রান ভিক্কা চাই , আর কনফেদেরেসন করার ওয়াদা করি। হাসিনা ঃ ছিঃ ছিঃ আব্বা। একি বললেন ? Bhutto এর হাতে –পায়ে ধরে প্রান ভিক্কা চাইলেন ? আপনি না বলে বাঘ ? মুজিব ঃ এটা সত্যি। মুখে নিজেকে বাঘ বল্লেও আসলে ত আমি মেনি বিরাল । সত্যি তুই চেপে রাখতে পারবি না। বেচে থাকতে আমায় আবুল মন্সুর, মুসা আহ্মেদ – এরা সাংবাদিকরা সব সত্যি প্রকাশ করতে বলেছিল। কিন্তু সত্যি সিকার করার মত যোজ্ঞতা আমার সিল না। আর ইতালিয়ান সাংবাদিক “আরিয়ানা ফালাসি” তো সবই পত্রিকায় লেখে দিয়াসে। গোপন করার কিছুই নেই। হাসিণা ঃ আর ঈণ্ডীয়াড় সৈন্য ফিরে চলে যাওয়ার ব্যাপারটা ? মূজীব ঃ চীনা সরকার জাতিসংঘ এ দাবী করল সব বিদেশী সৈন্য অপসারণ। ম্যাজিক এড় মতো কাজ হোলো। এটা ছিল চায়নার চাপ ইন্দিয়ার উপর। আমার কোণ ক্রেডিট নাই। হাসিনা ঃ আর স্বাধীনতার ঘোষণা ? ৩/৮ মুজিব ঃ এতাও খুব পুরিস্কার। BDR এর ওয়ারলেস এর মাদ্ধমে ঢাকা থেকে স্বাধীনতার ঘোষণা চট্রগ্রাম বেতার এ পাঠানও ভুয়া বাপার। কারন তখন EPR/BDR এর ওয়াকি টকি / ওয়ারলেস সিগন্যাল এতো শক্তিশালী ছিল না যে ঢাকা থেকে চট্রগ্রাম যাবে। সব চাইতে বড় কথা হসসে তখন BDR এর সিগন্যাল /ওয়ারলেস করের দায়িত্তে সিল ওয়েস্ট পাকিস্তান আর্মি অফিসাররা। আসলে স্বাধীনতার ঘোষণা জিয়া-েই দিয়ছে। হাসিনা ঃ তাহলে জিয়া এত বড় একটা কাজ করার পর ও তাকে কেন আর্মি প্রধান করলেন না ? মুজিব ঃ কর্নেল অয়াস্মানি কে বললাম তিন টা প্রোফাইল দিতে। কর্নেল অস্মানি নাম দিল – খালেদ মশারফ, শাফিউল্লাহ আর জিয়া। অনেক ছিন্তা করলাম। ১৯৭১ থেকেই খালেদ মশারফ ইন্দিয়ার চর ছিল। প্রচণ্ড ইন্ডিয়া ঘেশা, ইন্দিয়ার প্রথম প্রসন্দ – ভবিসসতে ইন্দিয়ার সাথে কোন বাপার নিয়া সাম্মান্ন মতবিরধ হলে খালেদ মশারফ কে তারা ব্যবহার করবে। তাই খালেদ মশারফ কে বাদ দিলাম। আর জিয়া – এর প্রোফাইল রিতিমত ভয়াবহ। ১৯৬৫ তে ইন্ডিয়া-পাকিস্তান ওয়ার এ জিয়া ২ টা AWARD পেয়েছে। জিয়া খেমারখান যুদ্ধে ইন্ডিয়া এর ৫০০ মাইল পর্যন্ত দখল করে নেয়। জিয়া এর ইউনিট ৯ টা AWARD পায়। ১৯৬৫ তে ইন্ডিয়া-পাকিস্তান ওয়ার এ একমাত্র খেমারখান ফ্রন্ট এ পাকিস্তান জিতে যায় । মোট ১১ তা AWARD পায় জিয়ার পুরো ইউনিট । ১৯৬৫ এর যুদ্ধের পরে জিয়া কে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর ট্রাইইনিং ইন্সট্রাক্টর নিয়গ দেয়া হয়। জিয়ার এরকম টাইগার রুপ দেখে ভয় পেয়ে গেলাম। তাছাড়া কিসুদিন আগে আন্না হাজরা (ইন্ডিয়া এর দুরনিতি বিরধি জননেতা) বলেসে যে, ১৯৬৫ এর ইন্ডিয়া-পাকিস্তান খেমারখান প্রদেশ যুদ্ধে সে ইন্ডিয়া আর্মি এর ট্রাক ড্রাইভার ছিল। পিপিলিকার মত ইন্ডিয়ান সেনার ম্রিতদেহ পরে থাকতে দেখেচে খেমারখান প্রদেশ সীমান্তে । আর একটা কথা – RAW এর সাথে ওস্মানি আর জিয়া এর মতবিরধ ছিল সেই ১৯৭১ থেকেই। জিয়া বীর টাইগার, ইমানদার, নামাযি, দেশপ্রেমিক, আর্মি তে পপুলার, স্বাধীনতার ঘোষণাকারী, ভারত ৪/৮ এর আগ্রাসী মনভাব কে মেনে নেয় না; সর্বোপরি, সেই সময়ের মূল্য মানের ২১ হাজার কোটি রুপির(১৯৭১ এ সোনার ভরি ছিল ১৪০ রুপি) অস্র, গোলাবারুদ- ১৯৭১ এ ইন্ডিয়া আমাদের দেশ থেকে লুটে নিয়ে যায়- জিয়া এটা মেনে নেয়নি। তাই বীর জিয়া আমার কাছে এবং ইন্ডিয়া এর কাছেও গ্রহণযোগ্য হল না। আর অই যে বললাম – জিয়াই স্বাধীনতার ঘোষণাকারী; এটাও আমার ভিতির কারন। সবশেষে রইল জো হুযুর মনভাবের ভেরা সাফিউল্লাহ। আমার সেরা পসন্দর ভেরা । আমার জিবনের সেরা ভুল। ১৫ ই অগাস্ট, ১৯৭৫ এ আমি ভোর এ সাফিউল্লাহ কে ফোন করলে হারামজাদা আমাকে বলে- বাসা থেকে পালিয়ে যেতে। কতবর কাপুরুষ আর বেইমান সোলজার সে। আমি মারা গেলাম – সাফিউল্লাহ আমার কবরের উপর দিয়ে হেঁটে বিদেশে দুতাবাস এ চাকরি নিয়ে চলে গেলো । যাকে সেনাপ্রধান বানালাম – সে একদিনের জন্যও আমার কবরটা এ পর্যন্ত দেখতে এলনা । আজ পরকালে বসে বুঝি – একমাত্র জিয়া ই বিদেসি থাবা থেকে দেশ কে যতটা সম্ভব রক্ষা করেছে। আর কেও পারেনি। সেই ছিল যোগ্য সেনাপতি। আমি বুঝি নাই। হাসিনা ঃ বুঝলাম। কিন্তু আপনি ১৯৭০ এর ইলেকশান এর টেকনিক টা বলবেন ? মুজিবঃ ছাত্র ইউনিয়ন, ছাত্র লীগ এর নেতারা( আ স ম আব্দুর রব, সেরাজুল আলম খান প্রমুখ) এখনও বেচে আছে । এই ছাত্র নেতারা জানে যে আমি সিলাম ত্রিতিও স্রেনির নেতা। সওারদি / ভাসানি ছিল আমার গুরু । ১৯৭০ এর ঘুরনি ঝড়ে পুরব পাকিস্তান এ ১০ লাখ মানুস মারা যায় । পচ্চিম পাকিস্তান থেকে তেমন কোনও সাহায্য আস্ল না । আমি ভাবলাম এই ত সুযোগ । তাছারা ভাসানি বললেন – “ভোটের বাক্সে লাথি মার, পুরব পাকিস্তান স্বাধীন কর “। সেই সাথে পাকিস্তান গয়ান্দা বাহিনি সরকার কে রিপোর্ট করল - ইলেকশন এ আওয়ামী লিগ ৬০/৭০ তার বেসি আসন পাবে না । মুস্লিম লিগও ভাসানির কথা শুনল – ১৯৭০ এর ইলেকশন এ এল না। আমি জিবনের সেরা সুযোগটা নিলাম। ফাঁকা মাঠ। ভাসানি, মুস্লিল লিগ – কেও ইলেকশ নএ নেই। সাথে ঘুরনি ঝরের signboard । বেকুব ৫/৮ মানুস ভুলে গেল যে ভাসানি, ফাযলুল হক, সরহ্বারদি, তুলনায় আমি ত্তৃটিও স্রেনির নেতা । আর যহির রাইহান কে স্বাধীন বাংলাদেশ এ মেরে ফেলে আওয়ামী লিগ নেতারা ভাল কায করেসে। যহির রাইহান ৩৫ মিমি এ সব সত্যি ধরে রেখেছিল । হাসিনা ঃ সেই জন্য আমারা কখনও যহির রাইহান এর নাম নেই না। যাহির রাইহান, আলামগির কাবির আর হাসান ইমাম এক সাথে ইন্ডিয়া থেকে বাংলাদেশ এ এসেসিল। আচ্ছা আব্বা, ব্রিগাদিএর মজুমদার ১৯৭১/মার্চ এর প্রথম দিকেই, এবং নাভি এর কম্যান্ডার ময়াজ্জাম হসাইন চট্টগ্রাম থেকে, সাধিনতার ব্যাপারে আপনাকে ১৯৭১/মার্চ এর অনেক আগেই প্রস্তাব দিয়াসিল। কারন ১৯৭১/মার্চ এর প্রথম দিকেই পূর্ব পাকিস্তান এ নন-বেঙ্গালি সোলজার কম চিল। প্রস্তাব দিয়াসিল - EPR Dhaka ও Dhaka cantonment, ঢাকা শহর এবং চট্টগ্রাম বন্দর থেকে নৌবাহিনী বন্দরের নিয়ন্ত্রন নিবে। আপনাকে সুধু স্বাধীনতার ঘোষণা দিতে হবে। আপ্নি এতা করলেন না কেন? মুজিবঃ আমি আসলেই চাইনি দুই পাকিস্তান ভাগ হয়ে যাক। এতে দুইটা দুরবল মুসলিম দেশ এর জন্ম হবে , আর মৌলবাদী ইন্ডিয়া শক্তিশালী হবে। ভবিষ্যতে ইন্ডিয়া চাইবে ভুতান/নেপাল এর মত ছোট বাংলাদেশ কে বুট এর তলায় রাখতে। সংবিধান এ সেকুলার হলেও ইন্ডিয়ান শাসকরা বরাবর মুসলিম বিরোধী। এখন ৪২ বসর পরে - ভেবে দেখ আমার কথা সত্যি কিনা ? হাসিনা ঃ ১৯৭১ এ প্রবাসী সরকারের উপর ইন্দিয়ার চাপ ছিল – স্বাধীন বাংলাদেশ এ কোন পেশাদার সোলজার বাহিনি থাকবে না। সুধু পুলিশ আর প্যাঁরা মিলিটারি থাকবে। এতা কি সত্যি ? মুজিব ঃ সেই জন্নই ত রক্ষী বাহিনী (প্যাঁরা মিলিটারি) গরে তুলি। ইন্ডিয়া থেকে ত্ত্রাইনার আনি। কিন্তু জিয়া এসে সব কিছুই ওলোট-পালট করে দেয়। জিয়া সব ইন্ডিয়ান “র” ট্রাইইনার কে ইন্ডিয়া ফেরত পাঠায়। রক্ষী বাহিনী গুরিয়ে দেয়। হাসিনাঃ ৭ ই মার্চ এর ভাসন সম্পরকে কিছু বলবেন ? ৬/৮ মুজিবঃ “এবারের সংগ্রাম....মুক্তির সংগ্রাম” - এই অমর বানি আমার না। সেই সময়ের ছাত্র নেতা সেরাজুল আলম খান এর। পেসন থেকে আমাকে বলতে বাদ্ধ করেসিল। সেরাজুল আলম খান পরে আর মুখ খুলেনি। সেরাজুল আলম খান মহসিন হল এ সাত খুন করে, আর আমিও তাকে ব্লাক্মাইল করি। হাসিনাঃ কাদের সিদিকি এর বাপারে কিছু বলবেন ? মুজিব ঃ ইন্দিয়ার দালাল। আমি না করেসি মুক্তিজুদ্ধ, না পেরেসি দেস চালাতে। অনেক দুর্বলতা । তাই অনেক অন্নায় মেনে নিয়াসি। আর জারা এই দুর্বলতা জানে তারাও আমার দুর্বলতার সুযোগ নিয়াসে। কাদের সিদ্দিকি “ড়” এর তৈরি । ওস্মানির পারালাল তইরি করতে ছেয়াসিল। বঙ্গবীর উপাধি কাদের সিদিকি কে ইন্ডিয়ান রাই দিয়াসে। হাসিনা ঃ আর ৬ দফা ......।? মুজিব ঃ ৬ দফা আমার মাথা থেকে কি ভাবে আসবে ? ইতিহাস পরে দেখ। অই সময় এ আইয়ুব খান এর প্লান অনুযায়ী আমি কায করেচি। আইয়ুব খান দেশে সমস্যা সৃষ্টি্ করে খমতা পাকা করতে চেয়েসিল আর আমায় ৬ দফার প্লান তৈরি করে দেয় । পাকিস্থান আর্মি আমায় বিস্বাস করত। ১৯৭১ এ আমি পাকিস্থান চলে গেলে তোঁদের ভরণপোষণ এর জন্য পাকি সরকার মাসিক ১৫০০ রুপি(১৯৭১ সোনার ভরি ছিল ১৪০ রুপি) এবং আর্মি এর রেসনও দিত। হাসিনা ঃ ১৯৭১ এর খালেদা জিয়া এর ব্যাপারটা ? মুজিব ঃ খালেদা জিয়া ১৯৭১ এ দুই বাচ্চাসহ ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট থেকে পালিয়ে মালিবাগ এ আসে । পরে পাকি সৈন্যরা আবারো মালিবাগ থেকে বন্দি করে নিয়ে যায়। মানুস কে না জেনে দোষ দিবি না। এই বিষয়টা এমপি গুলাম মাওলা রনি ভাল জানে। হাসিনাঃ ১৯৭৫ এ জিয়ার ভূমিকা বলবেন ? ৭/৮ মুজিব ঃ জিয়া খারাপ না। জিয়া খারাপ হলে আওয়ামী লিগ কে রাজনীতির অনুমতি দিত না। ঘুরিয়ে পেঁচিয়ে বলত - জাতির জনক আওয়ামী লিগ বন্দ করেসে আমি খোলার কে ? কিন্তু করেনি।বহু দলীয় গনতন্ত্র চেয়েছে বলেই এটা করেনি। তাছাড়া জিয়া ছিল সৎ, নিরলভ, বীর যোদ্ধা । ১৯৭৩ এ ১৩ সতাংস জমি কিনেসিল খালেদা জিয়া এর নামে, যেখানে এখন শিয়াল ডাকে। তোকে বিনা পইসায় দিলেও তুই অই অজ জাইগায় জমি নিবি না। হাসিনা ঃ ৩ মিল্লিওন অর ৩ লাখ এর বাপারটা জানাবেন ? মুজিব : অনেক কষ্টে ২২ বসর বয়সে ম্যাট্রিক পাস করি। ৩ য় বিভাগ এ। আমার আর বিদ্যা কত হবে। পাকিস্তান থেকে হিথরো এয়ারপোর্ট এ নেমে আমি বিবিসি বাংলা বিভাগ এর উপপ্রধান সেরাজুর রাহমান কে পাই। পরে বিবিসি ইন্তেরভিএও জিজ্ঞসা করে যুদ্ধে ক্ষতির পরিমান। আমাকে এক বাঙালি বলল ৩ লাখ মানুস মারা গ্যাছে । আমি বলে দিলাম ৩ মিলিওন। কিন্তু ১৯৭১ এর যুদ্ধের পর পরেই, আমি ঢাকা আসার আগেই ভওয়া / বিবিসি প্রছার করেছিল ৩ লাক মানুষ মারা গ্যাছে । আমি সেই খবরটা জানতাম না। হাসিনা ঃ জাতির জনক প্রশ্নে আপনার মতামত কি ? মুজিব ঃ আমি স্বাধীনতা ঘোষণা করিনি, যুদ্ধে অংশ নেইনি। কিন্তু সুযোগের সদবাবহার করতে ছেয়াসিলাম। এটা মহা অন্নায় ছিল। তোরা জাতির জনক নিয়ে বেশি কথা বলবি না। এই ব্যাপারে গনভোট হলে আমি হেরে যাবো। ৩০% ভোট ও পাব না। হাসিনা ঃ মানুশ বলে শেখ কামাল নাকি ডাকাত ছিল ? মুজিব ঃ পুলিশের গুলি খাওার পরে সেইখ কামাল কে ছিকিৎসার জন্য মস্কো (রাশিয়া) পাঠাই। এটা ঠিক। এসব নিয়া বেশি ঘাটাঘাটি করা ঠিক না । হাসিনা ঃ এয়ারশাদ কে কেন আর্মি তে নিলেন ? ৮/৮ মুজিব ঃ আমার সাথে মিল ছিল। দুই জনাই ১৯৭১ এ পাকিস্তান সিলাম। এরশাদ ছিল পসসিম পাকিস্তান এ আটকে পরা এবং বন্দি বাঙালি সেনাদের বিচারের জন্য গঠিত ত্রিবুনাল এর ডেপুটি চিপ। পাকিস্তান এ নিরাপদ থেকে দুই জনার ্কেও ই ১৯৭১ এর মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেইনি। আসলে এয়ারশাদ ও সাফিউল্লাহ এর মত আমায় পিষণ থেকে ছুরি মেরেছে। এয়ারশাদ কে দেরাদুন, ইন্ডিয়া তে ত্রাইনিং করতে পাথাই। ফিরল “র” এর চর হোয়ে । ”র” এর চর এয়ারশাদ ১৫ ই অগাস্ট এর পরে বঙ্গ ভবন এ পার্টি করল। কুছবিহারের সেলে এয়ারশাদ – আর কত ভাল হবে। আব্দুল গাফফার(লন্ডন) কেও টাকা দিয়ে মেনাজ করেসে। এই বাটপার কে সাবধানে হ্যান্ডল করবি। একদিন সেও সাফিউল্লার মত তোর কবর এর উপর দিয়া হেটে যেয়ে বঙ্গভবন এ পার্টি করবে। হাসিনা ঃ গোলাম আজম আর আপনাকে অনেকে পাকি বন্ধু বলে কেন ? মুজিব ঃ ক্ষমতায় থাকা কালে আমি একাই মেরেছি ৩৪০০০ বাঙালি রাজনৈতিক করমি, আর গোলাম আজম এর দোসর একেকজন পাকি সৈন্য ১৯৭১ এ বাঙালি মেরেছে ৩০ জন করে(৩০ লক্ষ বাঙালি / ১ লক্ষ সৈন্য )। আমরা দুই জনাই বাঙালি নিধন করেছি। হাসিনা : আব্বা আপণার নিজের মূল্লায়াণ করবেন ? মূজীব ঃ “আমাদের ্দেশে সেই ছেলে কবে হবে, কথায় ণা বড় হোয়ে, কাজে বর হবে...।“ আমার জন্য খাটী বয়ান । আড় একটা ব্যাপার, আমি যুদ্ধ করিনি। ১৯৭১ যারা যুদ্ধ করেসে তারা জানে – কী নিদারুণ কষ্ট তারা সহ্য করেছে। ১৯৭৫ এ যারা বিপ্লব করেছে তারা সবাই ছিলো মুক্তিযোদ্ধা......ফাড়ূখ, ডালীম, রশিদ সবাই । শেষ পর্যন্তও আমাকে দেশ বিরোধী হিসাবে মুক্তিযোদ্ধারাই মেরে প্রতিশোধ নিলো । ইন্দিয়ার পরামর্শে সেনাবাহিনী ভেঙ্গে দিয়ে , পারামিলিটতারি - রক্ষি বাহিনি তইরি করতে চেয়েসিলাম। মিথ্যা ্নায়ক সেজে জাতির জনক হতে চ্চেয়াসিলাম । আমার অন্যায় এড় শাস্তি আমি পেয়াছি। আর কী চায় বাংলাবাসি ? --- ০----

এস এইচ নিরব চৌকিদার , mathbaria ,  18 Dec,2016 03:39am

উনি সম্ভাবত জানেন না উনি যে ঘোষনার কথা বলছে সেটা ২৭শে মার্চ আর ২৬শে মার্চ যে ঘোষনা টি হয় তা হলো ""আই মেজার জিয়া কমান্ডিং ইন চিপ আর্মি প্রাইভাসি প্রেসিডেন্ট "" src="http://us.i1.yimg.com/us.yimg.com/i/mesg/emoticons6/6.gif" alt=">:D<"/>

কীবোর্ড নির্বাচন করুন: Bijoy   UniJoy   Phonetic   English

আপনার মতামত দিন

নাম (অবশ্যই দিতে হবে)

ইমেইল (অবশ্যই দিতে হবে)

ঠিকানা

মন্তব্য


"অবাঞ্চিত মতামত নিয়ন্ত্রনের জন্য সঞ্চালক কতৃক অনুমোদনের পর মতামত প্রকাশিত হয়"


 


 


 

অন্যান্য সংবাদ

X